প্রচ্ছদ » সম্পাদকীয় » বিস্তারিত

গুলশানে বিদেশী নাগরিক খুন

২০১৫ সেপ্টেম্বর ২৯ ০০:২৮:০৪

রাজধানীর গুলশানে কূটনৈতিক জোনে দুর্বৃত্তদের গুলিতে ট্যাভেলিস সিসেরো নামে এক ইতালীয় নাগরিক নিহত হয়েছেন। সোমবার সন্ধ্যায় গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর ইউনাইটেড হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তবে পুলিশ বলছে নিহত ব্যক্তি যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক। এদিকে এ ঘটনায় যুক্তরাজ্য দূতাবাস সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় বাংলাদেশে অবস্থানরত ব্রিটিশ নাগরিকদের সতর্কতার সঙ্গে চলাচলের নির্দেশ দিয়েছে।

তবে নিহত ব্যক্তি যে দেশেরই নাগরিক হন না কেন এই বিদেশীকে যে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে সেটা হত্যাকাণ্ডের ধরন দেখেই বোঝা যায়। নিহত সিসেরো রাস্তায় হাঁটাহাঁটি করছিলেন, এ সময় তিন মোটরসাইকেল আরোহী গুলি করে হত্যা করেন।

যে সময় জঙ্গি হামলার আশঙ্কায় অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফর অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে, ঠিক সেই মুহূর্তে একজন বিদেশী নাগরিককে গুলশানের মতো একটি স্থানে প্রকাশ্যে খুনের ঘটনা সেই অনিশ্চয়তাকে আরও বাড়িয়ে দেবে। অস্ট্রেলিয়ান দলের সফর বাতিল করার কথা বলায় ক্রিকেটের এক কর্মকর্তা বলেছিলেন, বাংলাদেশ আফগানিস্তান বা পাকিস্তান নয় যে জঙ্গিরা হামলা চালাতে পারে।

আমরাও তার এ বক্তব্যের সঙ্গে একমত থাকতে চাই। কিন্তু বেশ কয়েক বছর ধরে সরকারের বিভিন্ন মহলের বাংলাদেশ থেকে জঙ্গি নির্মূলের ঘোষণা দেশ ও দেশের বাইরে ধারণা তৈরি করেছে যে, বাংলাদেশে জঙ্গি তৎপরতা ক্রিয়াশীল।

নিহত সিসেরো হত্যাকাণ্ড সঠিকভাবে তদন্ত না হওয়া পর্যন্ত কোনো মহল যদি এটাকে জঙ্গিদের কাজ হিসেবে মনে করে তাহলে তা বাংলাদেশের জন্য কম ক্ষতির কারণ হবে না। আর সত্যি সত্যি যদি বাংলাদেশে জঙ্গিরা শক্তিশালী হয়ে ওঠে তাহলে সেটা হবে দেশের জন্য আরও বিপজ্জনক।