প্রচ্ছদ » প্রবাস কথা » বিস্তারিত

‘মূল কমিটি নয়, আত্মীয়-স্বজনের পকেট কমিটি’

২০১৫ অক্টোবর ০৯ ১৪:৩৪:২২
‘মূল কমিটি নয়, আত্মীয়-স্বজনের পকেট কমিটি’

মালয়েশিয়া প্রতিনিধি : বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির মালয়েশিয়া শাখার নবগঠিত কমিটির নেতারা আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন বলে অভিযোগ করেছেন একই কমিটির সহসভাপতি মোহাম্মাদ শহীদ উল্লাহ। একই সঙ্গে এ কমিটিকে পুনঃবিবেচনা করারও আহ্বান জানান তিনি।

কুয়ালালামপুরে নবগঠিত কমিটির বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা জানিয়ে বৃহস্পতিবার আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘নবগঠিত এ কমিটি জাতীয়তাবাদী দলের কমিটি হতে পারে না। কারণ এ কমিটিতে স্থান পায়নি বিভিন্ন জেলা কমিটির সদস্য। একে মূল কমিটি না বলে আত্মীয়-স্বজনের মাধ্যমে গঠিত পকেট কমিটি বলা যেতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিগত ও বর্তমান সময়ে এ সব নেতাদের প্রধান ব্যবসায়িক পার্টনার আওয়ামী লীগ নেতারা। দলের মধ্যে গ্রুপিং, মারামারি, দালাল দিয়ে শ্রমিক আটকসহ দলের নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদাবাজিও করেছেন তারা।

এ সময় তিনি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, ‘২০১৪ সালের ২০ আগস্ট মালয়েশিয়া শাখা বিএনপির ১৬১ সদস্যের প্রস্তাবিত কমিটি স্বহস্তে গ্রহণ এবং অনুমোদনের পর সেই কমিটি বিলুপ্ত না করে নতুন কমিটি কিভাবে অনুমোদন দিয়েছেন আমাদের বুঝে আসে না।’

নবনির্বাচিত কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক কাজী সালাউদ্দিন বলেন, ‘এতদিন থেকে মালয়েশিয়ায় যারা বিএনপির বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে তাদের মূল্যায়ন না করে একেবারে অপরিচিত লোকদের কমিটিতে স্থান দেওয়া হয়েছে।’

প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন- ড. আরিফ, সোহেল রানা মিল্কি, কামাল উদ্দিন রানা, খোরশেদ আলম, মো. মাসুদ রানা, জহির আহমেদ, শাহিন আহমেদ হাওলাদার, বাদল আহমেদ, ইমন হাসান, শওকত সর্দার, নাইম জাহাঙ্গীর, মহসিন পাটোয়ারী, মনসুর আলী প্রমুখ।

(দ্য রিপোর্ট/সিজি/আরকে/অক্টোবর ০৯, ২০১৫)