প্রচ্ছদ » বিশেষ সংবাদ » বিস্তারিত

কাজী জামশেদ নাজিম

দ্য রিপোর্ট

ডিবির নজরদারিতে সিজারের ‘৩ খুনী’

২০১৫ অক্টোবর ১৫ ২১:০৪:১৫
ডিবির নজরদারিতে সিজারের ‘৩ খুনী’

ইতালিয়ান নাগরিক তাভেলা সিজারের হত্যার রহস্য উদ্ঘাটিত হয়েছে বলে দাবি করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। হত্যাকাণ্ডে অংশ নেওয়া তিন খুনীকেই শনাক্ত ও নজরদারির মধ্যেই রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মামলাটির তদন্তে ‘সহায়ক কমিটি’র প্রধান ডিবির উপ-কমিশনার (পূর্ব) মাহবুব আলম।

দ্য রিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বৃহস্পতিবার মাহবুব আলম বলেন, ‘হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্র ও মোটরসাইকেল উদ্ধার অভিযান চলছে। এগুলো উদ্ধার হলেই নজরদারিতে থাকা তিন খুনীকে গ্রেফতার করে গণমাধ্যমের সামনে হাজির করা হবে।’

নিহত তাভেলা নেদারল্যান্ডসভিত্তিক বেসরকারি প্রতিষ্ঠান আইসিসিও কো-অপারেশন প্রুফসের (প্রফিটেবল অপরচুনিটিজ ফর ফুড সিকিউরিটি) প্রকল্প ব্যবস্থাপক ছিলেন।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় গুলশান-২ নম্বরের ৯০ নম্বর সড়কের ফুটপাতে দুর্বৃত্তরা তাকে খুব কাছে থেকে গুলি করে হত্যা করে। হত্যাকাণ্ডে দু’জন অংশ নেন বলে পুলিশের তদন্তে বলা হয়েছে। এ ছাড়া অপর ব্যক্তি মোটরসাইকেলের চালক হিসেবে অবস্থান করছিলেন।

এদিকে তদন্তকাজে সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা দ্য রিপোর্টকে জানান, অতিরিক্ত এক উপ-কমিশনারের (এডিসি) নেতৃত্বে একটি দল ম্যানুয়াল সোর্স, মোবাইল ট্র্যাকিং ও ক্লোজড সার্কিট (সিসি) ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ দেখে হত্যাকারীদের শনাক্ত করার কাজ শুরু করে। ফুটেজ দেখার পর গত সপ্তাহে মোটরসাইকেল আরোহীসহ অন্তত ২০ ব্যক্তিকে শনাক্ত করা হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এই কর্মকর্তা আরও জানান, ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ ও ভিডিও ফুটেজ যাচাই-বাছাই শেষে তিন ব্যক্তিকে বিশেষ নজরদারিতে রাখা হয়েছে।

তদন্ত কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে জানা গেছে, তাভেলার হত্যাকাণ্ডে পেশাদার ও ভাড়াটিয়া খুনীরা ব্যবহৃত হয়। সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে এবং বাংলাদেশবিরোধী আন্তর্জাতিক একটি চক্র এ হত্যার ঘটনা ঘটায় বলেও তদন্ত সংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তা দাবি করেন।

এদিকে, ঢাকা মহানগর পুলিশের যুগ্ম-কমিশনার (ডিবি) মনিরুল ইসলামও ওই তিন খুনীকে শনাক্ত করার দাবি করেছেন। বৃহস্পতিবার তিনি দ্য রিপোর্টকে বলেন, ‘হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত মোটরসাইকেল ও অস্ত্র উদ্ধারের পর এ রহস্য উদ্ঘাটন হয়ে যাবে। তবে হত্যাকারীরা ভাড়াটে খুনী বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।’

(দ্য রিপোর্ট/কেজেএন/জেআইএল/এএসটি/আইজেকে/সা/অক্টোবর ১৫, ২০১৫)