প্রচ্ছদ » শিক্ষা » বিস্তারিত

৩৪তম বিসিএসে দুর্নীতির প্রমাণ দেবে আন্দোলনকারীরা

২০১৫ অক্টোবর ১৭ ১৬:১৭:৩৫
৩৪তম বিসিএসে দুর্নীতির প্রমাণ দেবে আন্দোলনকারীরা

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : ৩৪তম বিসিএসের ফলাফল পুনঃপ্রকাশ করে শূন্যপদ পূরণের দাবিতে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের সামনে রবিবার থেকে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে ক্যাডার পদবঞ্চিতরা। পাশাপাশি তাদের কাছে এ পরীক্ষার ফলাফলে দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতির যথেষ্ট প্রমাণ রয়েছে বলেও জানিয়েছেন।

রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে শনিবার সকাল ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ৩৪তম বিসিএসের ফলাফল পুনঃপ্রকাশের দাবি জানিয়ে মানববন্ধন করেন শতাধিক পদবঞ্চিত ক্যাডার।

মানববন্ধনে আন্দোলনের সমন্বয়কারী নূর ইসলাম নূর বলেন, ‘রবিবার থেকে বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের সামনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচির পালন করা হবে। আর এ ফলাফলে যে দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতি হয়েছে তার যথেষ্ট প্রমাণ রয়েছে আমাদের কাছে। সময় হলে আমরা তা সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে জানাব।’

শূন্যপদে মেধাবীদের মূল্যায়ন করে মেধা ও প্রাধিকার কোটা আলাদা করে ফল প্রকাশের দাবিতে ৩৪তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশের পর থেকেই আন্দোলন করে আসছেন তারা। বিভিন্ন সময় প্রধানমন্ত্রীসহ বিভিন্ন দফতরে স্মারকলিপি প্রদান, মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন ছাড়াও গত ১১ অক্টোবর বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের সামনে মানববন্ধন করেছিলেন তারা।

আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, ৩৩তম বিসিএসে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৫৪ শতাংশ প্রার্থীকে ক্যাডার পদে সুপারিশ করা হয়েছিল। কিন্তু ৩৪তম বিসিএসে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণকারীদের মধ্যে মাত্র ২৫ শতাংশ প্রার্থীকে ক্যাডার পদে সুপারিশ করা হয়েছে। ফলে এ পরীক্ষায় বিপুলসংখ্যক উত্তীর্ণ মেধাবী পদবঞ্চিত হয়েছেন। এই বৈষম্য দূর করে ৩৩তম বিসিএসের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ৩৪তম বিসিএসের ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন করতে হবে।

৩৪তম বিসিএসে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় ৮ হাজার ৭৬৩ জন প্রার্থীর মধ্যে ২ হাজার ১৫৯ জনকে বিভিন্ন ক্যাডার পদে নিয়োগের সুপারিশ করে পিএসসি। কিন্তু এই বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী কৃতকার্যদের ৪০৪টি শূন্যপদ পূরণ করে ফলাফল পুনঃপ্রকাশের দাবি জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা।

৩৪তম বিসিএস পরীক্ষা নিয়ে শুরু থেকেই বিভিন্ন প্রশ্ন উঠেছে। প্রিলিমিনারি পরীক্ষার দু’বারে ফল প্রকাশ, লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশে দীর্ঘসূত্রতা এবং সর্বশেষ চূড়ান্ত ফল প্রকাশের পরও ক্যাডার পদে সুপারিশ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন প্রার্থীরা।

(দ্য রিপোর্ট/এলআরএস/এফএস/সা/অক্টোবর ১৭, ২০১৫)