প্রচ্ছদ » অর্থ ও বাণিজ্য » বিস্তারিত

‘পোশাকশিল্পের সমস্যা সমাধানে গ্লোবাল সেক্রেটারিয়েট দরকার’

২০১৫ অক্টোবর ১৭ ১৯:৫০:৩৫
‘পোশাকশিল্পের সমস্যা সমাধানে গ্লোবাল সেক্রেটারিয়েট দরকার’

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : ‘এ্যাকর্ড, এ্যালায়েন্স ও ন্যাশনাল এ্যাকশন প্ল্যান বাস্তবায়ন, বিশ্ববাজারে অব্যাহত দরপতন, উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি ও ডলারের বিপরীতে টাকার অবমূল্যায়নসহ নানামুখী চাপে রয়েছে দেশের তৈরি পোশাকশিল্প। এ ছাড়াও দুর্বল অবকাঠামো, গ্যাস-বিদ্যুৎ ও দক্ষ শ্রমিকের সংকটের কারণে তৈরি পোশাকশিল্প খাত ক্রমেই ঝুঁকির মধ্যে পড়ছে। এ অবস্থায় পোশাকশিল্পের সমস্যা সমাধানে ক্রেতা, উদ্যোক্তা, শ্রমিক, সরকার ও আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর প্রতিনিধিদের নিয়ে একটি গ্লোবাল সেক্রেটারি প্রতিষ্ঠা করা দরকার।’

শনিবার বাংলাদেশ গার্মেন্টস ম্যানুফেকচারার্স এ্যান্ড এক্সপোর্টার্স এ্যাসোসিয়েশন (বিজিএমইএ) ভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের নবনির্বাচিত সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান এ সব কথা বলেন। পোশাক ও শিল্প খাতে সার্বিক পরিস্থিতি ও করণীয় নিয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, গত জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বাংলাদেশের পোশাকের দাম কমেছে ২ দশমিক ৪৫ শতাংশ, একই সময়ে ইউরো জোনে কমেছে ১ দশমিক ৪১ শতাংশ। এ ছাড়া ২০১২ সালের পর থেকে এ পর্যন্ত ডলারের বিপরীতে ৮ দশমিক ৪২ শতাংশ টাকার মূল্যমান বেড়েছে। কিন্তু প্রতিযোগী দেশগুলোতে ডলারের দাম উল্লেখযোগ্য হারে অবমূল্যায়িত হয়েছে। তুরস্ক লিরা ৭০ শতাংশ, ভারতীয় রুপি ৩৪ শতাংশ, পাকিস্তানী রুপি ১৫ শতাংশ, ভিয়েতনামী ডং ৬ শতাংশ হারে অবমূল্যায়িত হয়েছে। এ ছাড়া গত এক বছরে মার্কিন ডলারের বিপরীতে ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোর মুদ্রা ইউরোর মান ১১ দশমিক ২৫ শতাংশ কমে গেছে। এতে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি। কারণ, আমাদের সামগ্রিক রফতানি প্রায় ৬০ শতাংশই হয় ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোতে।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রসহ এশীয় ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ১২টি দেশের মধ্যে ট্রান্স প্যাসিফিক পার্টনারশিপ (টিপিপি) চুক্তি স্বাক্ষর হওয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে পোশাক রফতানিতে সবচেয়ে বেশি বিপদে আছে বাংলাদেশ। কারণ চুক্তির আওতায় বাংলাদেশের প্রধান প্রতিযোগী দেশ ভিয়েতনাম বিনা শুল্কে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে পোশাক রফতানি করতে পারবে।

ভিন্ন এক প্রশ্নের জবাবে সিদ্দিকুর রহমান বলেন, দু’জন বিদেশী হত্যার প্রভাব পোশাকশিল্পে পড়বে না। কারণ এ ধরনের ঘটনা যুক্তরাষ্ট্র-অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশেও ঘটে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি আনোয়ারুল আলম চৌধুরী পারভেজ ও আবদুস সালাম মুর্শেদী, সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, বর্তমান সহ-সভাপতি মইনুদ্দিন আহমেদ, ফারুক হাসান, এস এম মান্নান, মাহমুদ হাসান খান, মোহাম্মদ নাসির, পরিচালনা বোর্ডের সদস্য পরিচালক শাহিদুল হক মুকুল, ইনামুল হক খান, আব্দুল্লাহ হিল রাকিব, কামাল উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

(দ্য রিপোর্ট/এআই/এপি/সা/অক্টোবর ১৭, ২০১৫)