প্রচ্ছদ » অন্যান্য খেলা » বিস্তারিত

মোরসালিন আহমেদের জন্মদিন

২০১৫ অক্টোবর ১৭ ২০:৪৩:৩২
মোরসালিন আহমেদের জন্মদিন

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : দ্য ডেইলি স্পোর্টস টোয়েন্টিফোর-এর বিশেষ প্রতিনিধি মোরসালিন আহমেদের শনিবার (১৭ অক্টোবর) জন্মদিন। ১৯৭১ সালেরি এই দিনে তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলার বাবুরাইলে জন্ম গ্রহণ করেন । বাবা মহিউদ্দিন আহমেদ এবং মাতা রওনক লায়লা । দুই ভাই এক বোনের মধ্যে তিনি সবার ছোট্ট। সাংবাদিকতার পাশাপাশি জাতীয় পর্যায়ে ক্রীড়া সংগঠক হিসেবে তার একটি সুপরিচিতি রয়েছে । এক সময় তিনি ঢাকা প্রথম বিভাগ দাবা লিগেরও নিয়মিত খেলোয়াড় ছিলেন।

মোরসালিন আহমেদ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির কার্যনির্বাহী পরিষদে ৩বার ক্রীড়া সম্পাদক হিসেবে এবং বাংলাদেশ ক্রীড়ালেখক সমিতিতে দুইবার সাংগঠনিক সম্পাদকের হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন । সমিতির প্রতিনিধি হয়ে তিনি ২০০২ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার বুসানে এশিয়ান গেমস, ২০০৮ সালে চীনের বেইজিংয়ে এবং ২০০৯ সালে ইতালির মিলানে এআইপিএসের কংগ্রেসে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দাবা লেখালেখিতে বিশেষ অবদানের জন্য ১৯৯৭ সালে প্রাইম ব্যাংক-লিওনাইন চেস প্রোডেজি পুরস্কার লাভ করেছে।

মোরসালিন আহমেদ দাবার উপর ৩টি বইও লিখেছেন। বইগুলো হচ্ছে গল্পে গল্পে দাবা খেলা, সেরা দাবাডুর প্রিয় খেলা এবং বিশ্ব দাবায় মেয়েরা। এছাড়া ’জাদুকর সামাদ’ নামে একটি ফুটবল বিষয়ক বইয়ের সম্পাদনাও করেছেন। তিনি বাংলায় প্রথম দাবা ওয়েবসাইট ’চেসবিডি ডটকমের সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করছেন।

সাংবাদিকতা ক্যারিয়ারে মোরসালিন দৈনিক অর্থনীতি, দৈনিক নয়াদিগন্ত, নিউজ গার্ডেন অনলাইন, স্পোর্টস লাইন, দৈনিক অর্থনীতি প্রতিদিনে কাজ করেছেন । পেশাগত দায়িত্ব পালনে তিনি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গেমস কভার করতে ভারত, নেপাল, ভুটান, শ্রীলঙ্কা, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, চীন, দক্ষিণ কোরিয়া, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইতালি, ভ্যাটিকান সিটি, ফ্রান্স, স্পেন, সুইজারল্যান্ড প্রভৃতি দেশ ভ্রমণ করেছেন।

মোরসালিন আহমেদ ২০০৯ সালে বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য হয়েছেন। ২০১২ সালে দাবা ফেডারেশনে নির্বাচনে যুগ্ম সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। ২০১০ সালে তিনি চীনের গোয়াংজু এশিয়ান গেমসে জাতীয় দাবা দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০১৪ সালে দাবা ফেডারেশনের অন্যতম প্রতিনিধি হিসেবে সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন গ্যারি কাসপারভের সঙ্গে মালয়েশিয়ায় বৈঠকে যোগ দিয়েছেন। দাবার পাশাপাশি তিনি বাংলাদেশ সাঁতার ফেডারেশনেও সাংগঠনিক দক্ষতার প্রমাণ রাখেন। ২০০৮ সালে বাংলাদেশ সাঁতার ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য হয়েছেন । ২০১০ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতে ওয়ার্ল্ড সুইমিং চ্যাম্পিয়নশিপে ম্যানেজার এবং ২০১১ সালে শ্রীলংকায় প্রথম সাউথ এশিয়ান বিচ গেমসেও জাতীয় সাঁতার দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেছেন।

(দ্য রিপোর্ট/এএস/কেআই/এনআই/অক্টোবর ১৭, ২০১৫)